Health Tips: অনিদ্রা ও দুশ্চিন্তার কারণে রাতে ঘুমাতে পারেন না ? এই ভাবে স্বস্তি পান

0

আজকের ব্যস্ত জীবনে মানুষের মানসিক চাপ এবং বিষণ্নতা থাকা সাধারণ ব্যাপার। একই সঙ্গে মানসিক চাপের কারণে অনিদ্রার অভিযোগও রয়েছে। আজকাল অনেকেই অনিদ্রায় ভুগছেন। সারাদিনের পরিশ্রমের পর শরীর ক্লান্ত হয়ে পড়ে। সেই সঙ্গে ক্লান্তি কাটিয়ে ঘুমাতে গেলেও ঘুম আসে না। মানুষের অভিযোগ, রাতেও তাদের মস্তিষ্ক কাজ করা বন্ধ করে না। মনের নিরন্তর দৌড়াদৌড়ির কারণে তাদের ঘুম হয় না। 

Health Tips: স্ট্রেস এবং অনিদ্রার কারণে খারাপ চিন্তা আসে ? এই ভাবে স্বস্তি পান

মানুষ ঘুমাতে চায়, কিন্তু মন্থন ও মনের মধ্যে নানা ধরনের চিন্তার কারণে ঘুম আসে না এবং মানুষ গভীর রাত পর্যন্ত জেগে থাকে। ঘুমের অভাবে শরীরে ক্লান্তি, বিভ্রান্তি, চোখে ব্যথা এবং আরও অনেক শারীরিক ও মানসিক সমস্যা দেখা দেয়। কিন্তু প্রত্যেকের জন্য আট ঘণ্টা ঘুম প্রয়োজন। এমন পরিস্থিতিতে রাতে মনকে শান্ত রাখতে এবং চিন্তার অবসান ঘটাতে কিছু ব্যবস্থা গ্রহণ করা যেতে পারে, যাতে মানসিক চাপ ও অনিদ্রার অভিযোগ দূর করা যায়। চলুন জেনে নিই অনিদ্রা ও মানসিক চাপের কারণে রাতের বেলা চিন্তা ও মন ঘুরে বেড়ানোর এই অবস্থা এবং এর চিকিৎসা সম্পর্কে।

মনস্তাত্ত্বিক ভিত্তিতে চিন্তাভাবনা করার কারণে, যে কারও ঘুমহীন অবস্থা হতে পারে। এই অবস্থায় আক্রান্ত ব্যক্তির উদ্বেগ সক্রিয় হয়ে ওঠে এবং তার ঘুমাতে অসুবিধা হয়। ভুক্তভোগীর মনে নানা চিন্তা আসে। তবে, মানসিক চাপই অনিদ্রার একমাত্র অভিযোগ নয়। অনেক সময়, দুশ্চিন্তা এবং মানসিক চাপের সময়, অনেকে ঘুমাতে যাওয়ার সাথে সাথে দীর্ঘ ঘুমিয়ে পড়েন। এই অবস্থাও বিপজ্জনক। এমন পরিস্থিতিতে আপনি যদি অনিদ্রায় ভুগছেন, তাহলে তাকে দৌড় চিন্তা বলে। এ রাজ্যে মানুষ চোখ বন্ধ করে জেগে ওঠে।

অনিদ্রা এবং দুশ্চিন্তার কারণ

মানসিক চাপ ও দুশ্চিন্তার কারণে মন আরও গতিশীল হয়। এই পরিস্থিতি বেশিরভাগই ঘটে যখন আপনার চারপাশের পরিবেশ শান্ত থাকে, অর্থাৎ রাতে। এটি যে কারও সাথে ঘটতে পারে, তবে রেসিং চিন্তাগুলি শুধুমাত্র উদ্বেগজনিত ব্যাধিযুক্ত ব্যক্তিদের জন্য একটি সমস্যা হিসাবে বিবেচিত হয়, তবে অগত্যা নয়। যারা মনে করেন যে তারা চিন্তিত নন, তাদেরও এই সমস্যা হতে পারে। মানসিক চাপের এই অবস্থা যেকোনো কারণে হতে পারে, যেমন প্রিয়জনের মৃত্যু, চাকরি হারানো, বিবাহবিচ্ছেদ বা পরিবারের কোনো সমস্যা, বদলি বা শোক ইত্যাদি।

অনিদ্রা এবং দুশ্চিন্তার লক্ষণ

অনিদ্রা এবং দুশ্চিন্তার লক্ষণ

দুশ্চিন্তার কারণে রাতে ঘর অন্ধকার হওয়ার পরেও অনেকে রাতে ঘুমাতে পারে না, অর্থাৎ রাতে খারাপ চিন্তার অবস্থা বা চিন্তার মন্থনে বিরক্ত হয়ে যাওয়ার অবস্থা। চিন্তার ঘূর্ণিতে তার মন ঘুরে বেড়ায়। বিছানায় কিছুক্ষণ শুয়ে থাকার পর তার অস্থিরতা শুরু হয়। মানুষ ফোন ব্যবহার করে মনকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করে। মাঝে মাঝে সকাল পর্যন্ত ঘুম আসে না চোখে।

অনিদ্রা এবং মানসিক চাপ কমাতে টিপস

অনিদ্রার অভিযোগ কাটিয়ে উঠতে মানসিক চাপ এবং চিন্তা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। এ জন্য দিনের কিছুটা সময় নিজের জন্য বের করুন এবং দুশ্চিন্তা নিয়ে চিন্তা করুন এবং এর সমাধান খুঁজুন।

প্রতিদিন একটি নির্দিষ্ট সময়ে আপনার কাজ পর্যালোচনা করুন। যাতে আপনি আপনার কাজে সন্তুষ্ট থাকতে পারেন এবং মানসিক চাপ কমাতে পারেন।

পরিপূর্ণ ঘুম পেতে কম্পিউটার, ফোন বন্ধ ও দূরে রাখুন। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে দূরে থাকুন, যাতে আপনি নিজেকে শিথিল করতে পারেন।

অনিদ্রা এবং মানসিক চাপ কমাতে টিপস

ঘুমের জন্য প্রস্তুত হতে কিছু সময় নিন। ঘুমাতে কমপক্ষে 30 মিনিট সময় লাগতে পারে। ধৈর্য ধরুন এবং বিছানায় যাওয়ার সাথে সাথে ঘুমিয়ে না পড়লে চিন্তা করবেন না।

আপনি চাইলে কিছু পড়তে পারেন, গান শুনতে পারেন, কিছুক্ষণ টিভি দেখতে পারেন, ব্যায়াম করতে পারেন বা ধ্যান করতে পারেন এবং ঘুমানোর আগে প্রার্থনা করতে পারেন। এই ক্রিয়াকলাপগুলি আপনাকে ঘুমিয়ে দিতে পারে।

এর পরেও যদি ঘুম না হয় এবং গভীর রাত পর্যন্ত জেগে থাকে, তাহলে যোগাসন বা ধ্যান করুন।

Tags

Post a Comment

0 Comments
Post a Comment (0)

#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !
To Top