Yoga Tips: জেনে নিন ভুজঙ্গাসন যোগের উপকারিতা ও আসন পদ্ধতি

0

লাইফস্টাইলের গোলযোগ এবং বসে থাকা জীবনযাপন মানুষের অনেক ধরনের সমস্যা বাড়িয়ে দিয়েছে। পিঠ, মেরুদণ্ড ও ঘাড়ে ব্যথার সমস্যা এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি দেখা যায়। সাধারণভাবে, আগে, অঙ্গ-প্রত্যঙ্গে ব্যথার সমস্যাকে বার্ধক্যজনিত সমস্যা হিসেবে দেখা হতো, যদিও এখন তরুণদের মধ্যেও এই ধরনের সমস্যা হচ্ছে।

ভুজঙ্গাসন যোগের  উপকারিতা

শরীরে ব্যথার সমস্যা আপনাকে খুব অস্বস্তিতে ফেলতে পারে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, লাইফস্টাইল অ্যাক্টিভিটি এবং নিয়মিত যোগ-ব্যায়ামের অভ্যাস এগুলো থেকে দূরে থাকতে সাহায্য করে।

যারা নিয়মিত যোগব্যায়াম করেন তাদের ব্যথার সমস্যার ঝুঁকি কম থাকে এবং এই অভ্যাসটি আপনার ফিটনেসের জন্যও খুব সহায়ক হতে পারে। যোগব্যায়াম বিশেষজ্ঞরা এই সমস্যাগুলি এড়াতে ভুজঙ্গাসন যোগব্যায়ামকে রুটিনে অন্তর্ভুক্ত করার পরামর্শ দেন। ভুজঙ্গাসন নিয়মিত অনুশীলনের অভ্যাস শারীরিক এবং মানসিক উভয় স্বাস্থ্য বজায় রাখতে খুব সহায়ক হতে পারে।

কিভাবে ভুজঙ্গাসন যোগাসন করবেন

প্রায় সব বয়সের মানুষের জন্য ভুজঙ্গাসন যোগ অনুশীলন করা বেশ সহজ এবং এর উপকারিতা। শুরুতে, আপনাকে অবশ্যই একজন বিশেষজ্ঞের কাছ থেকে এই আসন সম্পর্কে প্রশিক্ষণ নিতে হবে।

ভুজঙ্গাসন যোগাসন করতে, প্রথমে মাটিতে শুয়ে পড়ুন এবং আপনার হাতের তালু মেঝেতে কাঁধের প্রস্থে রাখুন। আপনার নীচের শরীরটি মাটিতে রেখে, শ্বাস নিন এবং আপনার বুক মেঝে থেকে তুলে ছাদের দিকে তাকান। শ্বাস ছাড়ার সময়, আপনার শরীরকে মেঝেতে ফিরিয়ে আনুন।

পিছনে এবং ঘাড় ব্যথা

পিঠ ও ঘাড় ব্যথার সমস্যা এড়াতে নিয়মিত ভুজঙ্গাসন যোগাসনের অভ্যাস বিশেষ উপকারী হতে পারে। এই ব্যায়ামটি আপনার পেট, বুক এবং কাঁধকে আরও ভালভাবে প্রসারিত করতে খুব সহায়ক। এই ভঙ্গিটি অনুশীলন করা আপনার মেরুদণ্ডকে শক্তিশালী করে এবং সায়াটিকার সমস্যা কমাতে পারে। যেহেতু ব্যায়ামের সময় ঘাড় পিছনের দিকে টানতে হয়, তাই ঘাড়ের ব্যথাও সহজে কমানো যায়।

মেরুদণ্ডের সমস্যা

ভুজঙ্গাসন যোগের অন্যান্য উপকারিতা 

কোমর এবং ঘাড়ের সমস্যা দূর করার পাশাপাশি, নিয়মিত ভুজঙ্গাসন যোগাসনের অভ্যাস আপনার স্বাস্থ্যের জন্য আরও অনেক উপকার দিতে পারে। বিশেষজ্ঞদের মতে, যারা নিয়মিত এই যোগব্যায়াম করেন তাদের অনেক শারীরিক-মানসিক স্বাস্থ্য সমস্যার ঝুঁকি কম থাকে।

  • মেরুদণ্ড মজবুত করে।
  • বুক ও ফুসফুস, কাঁধ এবং পেটের অঙ্গ প্রসারিত করতে সাহায্য করে।
  • মানসিক চাপ ও ক্লান্তি দূর করতে সাহায্য করে।
  • হাঁপানি রোগীদের জটিলতা কম হয়।
  • প্রজনন সিস্টেম উন্নতি যোগব্যায়াম অনুশীলন.
  • অনিয়মিত ঋতুস্রাবের সমস্যাও দূর হয়।
  • রক্ত সঞ্চালন বাড়াতে যোগাসন অন্যতম।

Tags

Post a Comment

0 Comments
Post a Comment (0)

#buttons=(Accept !) #days=(20)

Our website uses cookies to enhance your experience. Learn More
Accept !
To Top